আজ [bangla_day], [english_date] ইংরেজী, [bangla_date] বাংলা, [hijri_date] হিজরী | www.pekuanews.com | A 24 Hours National News Portal

ENGLISH

পেকুয়ায় মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর চেষ্টা

পেকুয়া প্রতিনিধি
কক্সবাজারের পেকুয়ায় অসহায় এক পরিবারকে মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসানোসহ নানান হয়রানীর চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক প্রভাবশালীর বিরোদ্ধে। জানাযায়, রাজাখালী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড রব্বত আলী পাড়া এলাকার জয়নাল আবেদীন ভোগ দখলীয় ও পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে রাজাখালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন সিকদারের সাথে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এদিকে জমির অপর মালিক হাফেজ আফাজ উদ্দিনের ছেলে রেয়াজ উদ্দিন থেকে ১৯৯৭ দলিল মূলে আজগর আলী পুত্র আবুল হোসেন ও স্ত্রী লুলুয়ারা বেগম ৩০ শতক জমি ক্রয় করে। আনোয়ার হোসেন সিকদার দাতা রিয়াজ উদ্দিনের স্থলে রব্বত আলী নামে ১৯৯৯নং অপর একটি ভুয়া দলিল সৃজন করে। ওই দলিলে ৩০ শতকের পরিবর্তে ৯৬শতক জমির প্রস্তাব রাখে। যাহার খতিয়ান নং ২৪৩৩। পূর্বের ১৩৭৬ খয়িতয়ানের ২৯৮৩ দাগের ৮৬ শতক জমির জাল দলিল সৃজন করে নেয় সাবেক চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন সিকদার। ওয়ারিশি সম্পত্তির মালিক জয়নাল আবেদীন সৃজিত দলিলের বিরোদ্ধে গত ২৭ ফেব্রুয়ারী চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি প্রতারণা মামলা করেন। যার মামলা নং সিআর ২১৭/১৯ইং। বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে নেয়। বর্তমানে বিচারাধীন আছে। এরপর থেকে মামলা তুলে নিতে সাবেক চেয়ারম্যান বাদী পক্ষকে বিভিন্ন সময় নানান হুমকী ধুমকী দিয়ে আসছে। দায়েরকৃত মামলাটি আপোষ না দেওয়ায় ক্ষুদ্ধ হয়ে সাবেক চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন সিকদার ৬ মে লবন লুঠের অভিযোগ এনে জয়নাল আবেদীনের ছেলে ছরওয়ার আলম ছলুকে ১নং আসামী করে ৬জনের বিরুদ্ধে চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং সিআর ৫০২/১৯ইং। সুত্রে জানা জানা যায়, চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের ফুলছড়ি মৌজার লবন মাঠ থেকে ২,১০,০০০ টাকা মূল্যের ৭০০ লবন লুঠ করেছে বলে মামলাটি দায়ের করেন।
এবিষয়ে ভুক্তভোগী জয়নাল আবেদীন বলেন, জমি বিরোধের জের ধরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন সিকদার আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর চেষ্টা চালাচ্ছে। আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবরে এর সুষ্ট বিচারের দাবী জানাচ্ছি।

288 total views, 1 views today

Translate »